আজ, সোমবার | ৪ঠা মার্চ, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ২০শে ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ



চকরিয়ার কাকারায় অবৈধকাজে বাধা দেয়ায় মোটরসাইকেল পুড়িয়ে দেয়া হল, ঘরেও অগ্নিসংযোগ

চকরিয়া প্রতিনিধিঃ
চকরিয়া উপজেলার কাকারা ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডের উত্তর পাহাড়তলী বাদশার টেক এলাকায় পূর্বশত্রুতার জেরধরে রাতের আধারে মোটরসাইকেল পুড়িয়ে দেয়ার অভিযোগ উঠেছে। এসময় বড় ধরণের ক্ষয়ক্ষতি থেকে রক্ষা পায় তিনতলা বিশিষ্ট ভবনের ভাড়াটিয়ার মুদির দোকান ও কাপড়-কসমেটিকের দোকান। আগুনের শিখা ঢুকে ভবনের প্লাস্টার ফেটে ঝড়ে পড়ছে। ২১এপ্রিল রাত ১টার দিকে এ ঘটনা ঘটেছে। এদিকে ঘটনাস্থল পরিদর্শনে যান কাকারা ইউপি চেয়ারম্যান সাহাব উদ্দিন।

এঘটনায় উপজেলার কাকারা ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ড মাইজ কাকারা গ্রামের মাশুক আহমদের পুত্র বেলাল উদ্দিন ভুট্টো (৫২) বাদী হয়ে থানায় লিখিত এজাহার দায়ের করা হয়েছে। এতে আসামী করা হয়েছে; ৯নং ওয়ার্ডের পাহাড় তলী গ্রামের হােছন প্রঃ হােছন ফকিরের পুত্র মােঃ ওসমান গণি, লােকমান মিকারের পুত্র মােঃ রায়হান, আবুল খাইরের পুত্র ইয়াছিন, মৃত মােঃ নুরুর পুত্র আবদুল্লাহ, মোঃ কালুর পুত্র বেলাল হাসান সহ অজ্ঞাত নামা ৬/৭ জনকে।

অভিযোগে জানান,বাদীর কাকারা ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডের বাদশার টেকস্থ ৩ তলা বিশিষ্ট পাকা দালান ঘর রয়েছে। ঘরের ১ম তলা মুদির দোকান ও ২য় তলার সামনের অংশে কাপড়ের দোকানের ভাড়াটিয়া রয়েছে।এছাড়া বাদী দালান ঘরের ২য় তলায় স্ব-পরিবারে বসবাস করেন। বর্তমানে উক্ত দালান ঘরের ৩য় তলার নির্মাণ কাজ চলতেছে। কিন্তু উল্লেখিত আসামীগণ প্রতিহিংসা পরায়ন ও দূর্লোভের বশীভূত
হয়ে আসামীগণ সম্প্রতি সময় থেকে হাঁকাবকা ও হুমকি-ধমকি দিয়ে আসছে। এমনকি পাকা বসত ঘর পুড়িয়ে দিয়ে বাদীকে স্ব-পরিবারে হত্যা সহ অপূরণীয় ক্ষতি সাধন করবে। উক্ত বিষয়ে স্থানীয় কাকারা ইউপি চেয়ারম্যান ও এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিগণকে অবগত করেন। ফলে আসামীগণ আরাে ক্ষিপ্ত হয়ে গত ২১এপ্রিল রাত আনুমানিক ১ ঘটিকার সময় বসত ঘরে ঘুমে বিভাের দেখিয়া স্ব-পরিবারে হত্যা ও পাকা ঘর পুঁড়িয়ে দিয়ে অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতি করার লক্ষে অবৈধ অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে বাদীর পাকা বিল্ডিং এর ১ম তলার মুদির দোকান ভিটায় গিয়ে দোকানের লােহার দরজার গ্রীল ভাংচুর করার একপর্যায়ে বিকঠ শব্দে ঘুম ভেঙ্গে ২য় তলার বসত ঘরের রুম হতে উঠলেই বিদ্যুৎ বাতির আলােতে তাদের দেখতে পান। এসময় বােতল ভর্তি পেট্রোলে পাকা ঘরের ১ম তলার গ্রীলে ও সামসেটে এবং বাদীর ব্যবহৃত ইয়ামাহা মােটর সাইকেলে (নং- কক্সবাজার-ল-১১-২১১৫) এলােপাতাড়ীভাবে ছিটিয়ে গ্যাস লাইটের আলাে জ্বালিয়ে আগুন ধরিয়ে দেয়। ফলে মুহুর্তেই ১৫০ সিসি ইয়ামাহা মােটর সাইকেল, যাহার মূল্য ১,৩৫,০০০/- টাকা ও ১ম তলার মুদির দোকানের গ্রীল এবং ২য় তলার কাপড়ের দোকানের গ্রীলের দরজা এবং উক্ত বিল্ডিং এর কিছু অংশ পুঁড়িয়া সর্বমােট প্রায় চার লাখ টাকার ক্ষতি হয়। আগুনের শিখার শব্দে ও ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের শাের চিৎকারে স্থানীয় লোকজন এগিয়ে গেলে আসামীগণ দোঁড়িয়ে পালিয়ে যায়। পরে স্থানীয়দের প্রচেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রনে আনে। অন্যথায় সম্পূর্ণ দালান ঘর ও মুদির দোকানে থাকা ৩০টি গ্যাস সিলিন্ডার সহ তার স্ব-পরিবারে পুড়িয়ে মারা যেতে বলে অভিযোগে জানান।
চকরিয়া থানার ওসি চন্দন কুমার চক্রবর্তী বলেন, ঘটনার বিষয়ে লিখিত অভিযোগ পাওয়ার পর তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নিতে উপপরিদর্শক মোশারফ হোসেনকে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। সত্যতা পেলে মামলা নেওয়া হবে।