আজ, বুধবার | ২৪শে এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ১১ই বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ



চকরিয়া গ্রামার স্কুল অ্যালামনাই এসোসিয়েশনের বর্নাঢ্য আয়োজনে ঈদ পূণর্মিলনী উৎসব সম্পন্ন

চকরিয়া প্রতিনিধিঃ
চকরিয়া গ্রামার স্কুল অ্যালামনাই এসোসিয়েশন উদ্যোগে আয়োজিত ঈদ পূণর্মিলনী উৎসব”২৩ শনিবার দিনব্যাপী নানান কর্মসূচির মধ্য দিয়ে বর্ণাঢ্য আয়োজনে উদযাপিত হয়েছে।
অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সোশ্যাল ইসলামী ব্যাংক লিঃ এর ব্যাবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী বিশিষ্ট ব্যাংকার ও অর্থনীতিবীদ মোঃ জাফর আলম।

গ্রামার স্কুলের অধ্যক্ষ মোঃ রফিকুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানের উদ্বোধক ছিলেন চকরিয়া গ্রামার স্কুলের সভাপতি প্রফেসর বশির আহম্মেদ,প্রধান আলোচক স্কুলের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি প্রফেসর মোঃ আব্দুল হালিম চৌধুরি, বিশেষ অতিথি স্কুলের সাধারণ সম্পাদক প্রফেসর চৌধুরী মোঃ আজম খান। উপস্থিত ছিলেন স্কুলের সদস্য ফরিদুল ইসলাম, সদস্য ও আনোয়ার শপিং কমপ্লেক্সের স্বত্ত্বাধিকারী আনোয়ার হোসেন, সিনিয়র শিক্ষক শহিদুল ইসলাম শহিদ ও আব্দুল মান্নান।
চকরিয়া গ্রামার স্কুল অ্যালামনাই এসোসিয়েশনের আহ্বায়ক হাসান মোঃ মোরশেদ ও সদস্য সচিব এম এস ইরফান চৌধুরী, যুগ্ম আহ্বায়ক মিনহাজ রানা, পলাশ সুশীল, আহনাফ কবির পাপন সহ অ্যালামনাইদের সার্বিক তত্ত্বাবধানে দিনব্যাপী উক্ত অনুষ্ঠানটি সম্পন্ন হয়।

বক্তারা বলেন, গ্রামার স্কুল থেকে লেখাপড়া শেষ করে ঢাকা-চট্টগ্রামে কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়ে গিয়েও কৃতিত্বের সাক্ষর রাখছেন। এ স্কুলের অনেক প্রাক্তন শিক্ষার্থীরা দেশ সেরা হয়ে সরকারি-বেসরকারি ভালো পরিসরে অবস্থান করছেন। নিয়োগ পেয়েছেন সরকারের সেনা বাহিনী, বিচারবিভাগ, নির্বাহী বিভাগ, সিভিল ও ডিফেন্সে। এটি যেমনিভাবে স্কুলের অর্জন, তেমনিভাবে সন্তানদের মা-বাবারাও স্বীকৃতি। বিশেষ করে এটি সম্ভব হয়েছে স্কুলের শিক্ষকদের পাশাপাশি অভিজ্ঞ ও দক্ষ পরিচালনা পর্ষদের কারণে। বক্তারা অ্যালামনাই এসোসিয়েশনকে আরো শক্তিশালী করতে ও স্কুলের আরো অগ্রগতি সার্বিক সহযোগিতা করে যাওয়ার ঘোষণা দেন। পাশাপাশি বক্তারা একদিন এই স্কুলের শিক্ষার্থীরা উচ্চ পরিসরে গিয়ে প্রশাসনিক কর্তৃত্ব ও নেবেন বলেও আশা ব্যক্ত করেন।
এদিন সকাল সাড়ে ৮টায় বর্ণাঢ্য র‌্যালি চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়ক প্রদক্ষিণ করে। পরে স্কুল ক্যাম্পাস মাঠে গিয়ে আলোচনা, স্মৃতি চারণ, মরহুম শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের জন্য দোয়া এবং বিকেল নাগাদ থেকে রাত পর্যন্ত মণোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনু্ষ্ঠানের আয়োজ করা হয়। এতেও প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে সকল ব্যাচের প্রাক্তন শিক্ষার্থীরা অংশ নেন।