আজ, সোমবার | ২২শে এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ৯ই বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ



চকরিয়া পৌর এলাকায় বিরোধীয় পৈত্রিক জমি জবর দখলে নিতে পাকা দালান নির্মাণের চেষ্টা

চকরিয়া প্রতিনিধিঃ
চকরিয়া পৌরসভার হাসপাতাল পাড়ায় ২২মে দুপুরে বিরোধীয় পৈত্রিক জমিতে ঘটেছে জবর দখলে এ ঘটনা। এঘটনায় চকরিয়া পৌরসভা ৪নং ওয়ার্ডের ভরামুহুরী মসিজদ পাড়ার বাসিন্দা মৃত আবদু ছমদের পুত্র আবদুর রাজ্জাক (৪২) বাদী হয়ে থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।
এতে বিবাদী করা হয়েছে; আপন সহোদর আবদুল মন্নান (৪৪), আবদুল মোমেন (৩১), উভয়পিতাঃ মৃত আবদু ছমদ, বোন খোরশিদা বেগম (৩৫)সহ অজ্ঞাত আরো ৭/৮ জনকে।

অভিযোগে জানাগেছে, চকরিয়া পৌরসভার হাসপাতাল পাড়ায় চিরিংগা মৌজার আর,এস ২৬ ও ২৮নং খতিয়ানের তুলনা মূলক বি,এস ৭৪ নং খতিয়ানের বি,এস ৭০নং দাগের আন্দর ২০ শতক জমি রয়েছে বাদী ও বিবাদী পক্ষের। যার খরিদা দলিল নং-৭০৪১, তারিখঃ ০৬/১০/১৯৮০ইং। কিন্তু বিবাদী পক্ষ লাঠিয়াল, ভূমি দস্যু, জবর দখলকারী, পরধন লোভী ও খারাপ প্রকৃতির লোক হওয়ায় জমির ভাগ-বন্টন না করে তাদের পৈত্রিক জমিতে সন্ত্রাসী কায়দায় জোর পূর্বক চারিদিকে পাকা ভাউন্ডারী দেওয়াল নির্মাণ পূর্বক জবর দখলের চেষ্টা করে। বিষয়টি জাতীয় সেবা কেন্দ্রের ৯৯৯ নাম্বারে কল করলে থানার সহকারি উপপরিদর্শক উত্তম কুমার ভৌমিকের নেতৃত্বে পুলিশ টীম অভিযান চালিয়ে শান্তিশৃঙ্খলা রক্ষায় কাজ বন্ধ করে দেন। ইতিপূর্বে
বিজ্ঞ অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আদালত, কক্সবাজারে ১৪৪ ধারায় এম,আর মামলা নং-৪৮৯/২১ইং দায়ের করেন। উক্ত মামলার আলোকে
চকরিয়া থানার তদন্তকারী কর্মকর্তা নোটিশ জারী করে জমিতে শান্তি-শৃঙ্খলা বজায় রাখাসহ জবর দখলীয় কার্যকলাপ হতে বিরত থাকার জন্য নিষেধ করেন। কিন্তু বিবাদীগণ তা অমান্য করলে তাদের বিরুদ্ধে চকরিয়া থানার সাধারণ ডায়েরী নং-৭২১, তারিখঃ ১৬/০৩/২০২১ইং রুজু করা হয়। উক্ত জিডির আলোকে তদন্তকারী কর্মকর্তা ননজিআর মামলা নং-৩৭, তারিখঃ ১৯/০৩/২০২১ইং, ধারা-ফৌঃ কাঃবিঃ ১০৭/১১৭ (সি) প্রসিকিউশন দেন। মামলায় বর্তমানে আসামীদের বিরুদ্ধে পরোয়ানা জারি করেন। তাও উপেক্ষা করে জমিতে ইট, বালি, সিমেন্ট, কংকর স্তুপ করে অজ্ঞাতনামা ৭/৮ জন মেস্ত্রী দিয়ে পাকা বসতঘর তৈরীর কাজ করেন। তাতে বাদী বাধা দিলে অশ্লীল ভাষায় গালি-গালাজ ও প্রাণনাশের হুমকি প্রদর্শন করেন।
চকরিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত অফিসার ইনচার্জ (ইন্সপেক্টর) মোঃ জুয়েল ইসলাম জানান, ঘটনার বিষয়ে লিখিত অভিযোগ পাওয়ার পর বিষয়টি তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার জন্য থানার সহকারি উপপরিদর্শক উত্তম কুমার ভৌমিককে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে।