আজ, সোমবার | ১৫ই জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ৩১শে আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ



কক্সবাজারে সকাল থেকে ঘন বৃষ্টি হওয়ায়, দূর্ভোগের স্বীকার হয়েছে এইচ এস সি পরীক্ষার্থীসহ সাধারণ জনগণ:

 

কক্সবাজারে সকাল থেকে ঘন বৃষ্টি হওয়ায়, দূর্ভোগের স্বীকার হয়েছে এইচ এস সি পরীক্ষার্থীসহ সাধারণ জনগণ:

নজরুল ইসলাম, কক্সবাজার:

মৌসুমি বায়ুর প্রভাবে কক্সবাজারে আজ রোববার সকাল থেকে ভারী বৃষ্টি হচ্ছে। এতে জলাবদ্ধতা ও পাহাড়ধসের আশঙ্কা তৈরি হয়েছে। শহরের বেশ কিছু স্থানে অল্প পানিতে সড়ক তলিয়ে যাওয়ায় যানবাহনের গতি কমে গেছে। ফলে সেসব স্থানে যানজট তৈরি হয়েছে। তবে আজ থেকে এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষা শুরু হওয়ায় তীব্র বৃষ্টির মধ্যেও যানবাহনের সংখ্যা বেশি দেখা গেছে সড়কে। পরীক্ষার্থী ও অভিভাবকেরা যানজট এড়িয়ে ঘুরপথে পরীক্ষাকেন্দ্রে যাওয়ার চেষ্টা করেছেন।

শহরের উপজেলা, সুগন্ধা সহ বেশ কিছু স্থানে অল্প জলাবদ্ধতা দেখা গেছে সকালে। এ সময় কক্সবাজার টার্মিনাল হতে বাজারঘাটা রাস্তায় যানজট দেখা দেয়। শহরের ভিতরে দুই-তিনটি কলেজে এইচএসসি পরীক্ষার কেন্দ্র রয়েছে। যানজট ও তীব্র বর্ষণের কারণে পরীক্ষা শুরুর আধঘণ্টা আগে কেন্দ্রে পৌঁছানো নিয়ে উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েন শিক্ষার্থী ও অভিভাবকেরা। এইচএসসি পরীক্ষার কেন্দ্রের সামনে অভিভাবক ও পরীক্ষার্থীদের ভিড়। সামনের সড়কেও যানবাহন আটকা পড়েছে।

গত বৃহস্পতিবার আবহাওয়া অধিদপ্তর চট্টগ্রামসহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে ভারী বর্ষণের সতর্কবাণী দিয়েছিল। অধিদপ্তরের আবহাওয়াবিদ সতর্কবার্তায় বলেছিলেন, বাংলাদেশের ওপর মৌসুমি বায়ু সক্রিয় থাকায় রংপুর, ময়মনসিংহ, ঢাকা, সিলেট, বরিশাল ও চট্টগ্রাম বিভাগের কোথাও কোথাও শুক্রবার থেকে পরবর্তী ৭২ ঘণ্টায় ভারী থেকে অতি ভারী বর্ষণ হতে পারে। এই সময় প্রতিদিন ৪৪ থেকে ৮৮ মিলিমিটার এবং ২৮৯ মিলিমিটার পর্যন্ত বৃষ্টিপাত হতে পারে। ভারী বর্ষণের কারণে চট্টগ্রামের বিভিন্ন জেলায় ভূমিধ্বসের আশঙ্কা আছে বলে জানিয়েছেন।

তবে ভারী বর্ষণের পরও সেভাবে জলাবদ্ধতা হয়নি শহরে। কক্সবাজার এর স্থানীয় বাসিন্দা গিয়াস উদ্দিন দুপুর ১২টার দিকে বলেন, এখনো পর্যন্ত এলাকায় পানি ওঠেনি। তবে যেভাবে বৃষ্টি হচ্ছে, এভাবে বৃষ্টি হলে বন্যার আশঙ্কাও দেখা দিতে পারে।