আজ, মঙ্গলবার | ২১শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ৭ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ



ডুলাহাজারায় প্রাণ নাশের হুমকিকে পালিয়ে বেড়াচ্ছেন শিক্ষক জহির শীর্ষক সংবাদের প্রতিবাদ

গত ৩/৪/২০২৪/তারিখ থেকে কক্সবাজার নিউজডটকম, কক্স বার্তা, মালুমঘাট বার্তা ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকসহ বিভিন্ন মাধ্যমে একটি অস্ত্রের প্রতিকী ছবিসহ প্রচারিত “ডুলাহাজারায় প্রাণ নাশের হুমকিকে পালিয়ে বেড়াচ্ছেন শিক্ষক জহির, আদালতে জিডি” শিরোনামে প্রকাশিত সংবাদটি আমাদের দৃষ্টি গোচর হয়েছে। সংবাদটি সম্পূর্ণ মিথ্যা ভিত্তিহীন ও উদ্দেশ্য প্রণোদিত। সংবাদের সাথে বাস্তবতার মিলনাই।
প্রকৃত ঘটনা হচ্ছে; সংবাদে উল্লেখিত জহিরুল ইসলাম পিতা বজল আহমদ প্রকাশ (ভদো) ২০টি পরিবারের দীর্ঘদিনের চলাচল রাস্তায় টীনের ঘেরা বেড়া দিয়ে বন্ধ করে দেয়ায় এসব পরিবার ঝুঁকিপূর্ণভাবে বসবাস করে আসছে, যাহা প্রশাসন সরজমিনে গেলেই সত্যতা পাবে। টিনের বেড়া দিয়ে জনগণের চলাচলের সরকারি রাস্তার জায়গা দখল করার কারণে মৃত ব্যক্তিদের লাশ বের করা এবং কোন বাড়িতে অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটলে ফায়ার সার্ভিস গিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রনে আনারও কোন সুযোগ থাকবেনা। ফলে এলাকার ২০টি পরিবার জিম্মি হয়ে পড়েছে।

এসব বিষয়ে প্রতিবাদ করায় জিম্মি থাকা স্থানীয় বাসিন্দা মৃত আজিজ নূরের পুত্র মোঃ শাহজাহান, মোঃ মিজবাহ, মোঃ শওকত, জাওয়াদ ও মেয়ে আনার কলি ও মৃত আবুল কালামের পুত্র তানজিম উদ্দিনকে নিয়ে মিথ্যা সংবাদ প্রচার ও আদালতে জহিরুল ইসলাম হয়রাণী মূলক জিডি করেছে।
সংবাদে উল্লেখিত তানজীম উদ্দিনের সাথে জহির উদ্দিনের জায়গার জমি কোন বিরোধ নেই। মূলতঃ জহির তানজীমের প্রাক্তন প্রাইভেট শিক্ষক ছিল।সেই সম্পর্কের সুবাদে জহির মাষ্টার একটি ইংরেজী বই প্রকাশনায় অধিক লভ্যাংশের কথা বলে বিগত ২০২১ সালে ব্যবসায়ীক উদ্দেশ্যে নগদে ১লক্ষ ৫০ হাজার টাকা ধার নিয়েছিল। উক্ত টাকা আজ দেবে কাল দেবে বলে দীৃঘদিন ধরে কালক্ষেপন করে আসছে। সম্প্রতি উক্ত টাকার জন্য চাপ প্রয়োগ করায় ক্ষিপ্ত হয়ে উল্লেখিত সংবাদে প্রতীকি অস্ত্রের ছবি দিয়ে তানজীমকে জড়ানো হয়েছে।

সংবাদে উল্লেখিত আনার কলি চকরিয়া কলেজের প্রয়াত অধ্যাপক মনজুরুল হকের স্ত্রী। শুধুমাত্র উল্লেখিত শাহজাহান গং ভাইদের পক্ষে কথা বলার কারণে তার বিরুদ্ধে ইয়াবা ব্যবসার নামে মিথ্যা অভিযোগ আনা হয়েছে। এমনকি সংবাদে তাকে ইয়াবা সহ গ্রেফতারের যে অপবাদ দেয়া হয়ে তাহা মোটেও সত্য নয়। এ বিষয়ে তিনি সংশ্লিষ্টদেরকে দশ লক্ষ টাকার চ্যালেঞ্জ ঘোষণা করেছেন।

সংবাদের অস্ত্রের প্রতিকী ছবিটি হচ্ছে ফেসবুক অনলাইন থেকে সংগৃহিত।এখানে কেউ অস্ত্রধারীও নয়,ইয়াবা ব্যবসায়ীও নয়। যা সম্পূর্ণ মিথ্যাচার ছাড়া কিছুই নয়।
তাই প্রকাশিত উক্ত মিথ্যা সংবাদ নিয়ে বিজ্ঞ আদালত, প্রশাসন ও সংশ্লিষ্ট কাউকে বিভ্রান্ত না হওয়ার জন্য আহবান জানাচ্ছি এবং সংবাদের তীব্র প্রতিবাদ জানাচ্ছি।

প্রতিবাদকারী
মোঃ শাহজাহান, মোঃ মিজবাহ, মোঃ শওকত,
জাওয়াদ ও আনার কলি, সর্বপিতা মৃত আজিজ নূর,
তানজিম উদ্দিন, পিতা: মৃত আবুল কালাম, সর্বসাং- নতুন পাড়া, ৮নং ওয়ার্ড, ডুলাহাজারা ইউনিয়ন, চকরিয়া, ককসবাজার।