আজ, বুধবার | ২৪শে এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ১১ই বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ



চকরিয়ায় যুবককে হত্যার চেষ্টা

চকরিয়া সংবাদদাতা,চাকরীর ছুটিতে চট্টগ্রাম থেকে বাড়ী যাচ্ছিলেন রিকু কুমার দে নামের এক যুবক। তার পরিবার সূত্রে যানা যায় সে কক্সবাজারের চকরিয়া উপজেলার ডুলাহাজারা এলাকার ৮নং ওয়ার্ড এর মৃত নলীন দে এর সন্তান। সুধুর পথ পাড়ি দিয়ে বাসযোগে চকরিয়া ডুলাহাজারা বাজারে নেমে পায়ে হেঁটে নিজ বাড়ীর দিকে যাওয়ার পথিমধ্যে গতকাল ২১/০২/২০২৪ইং তারিখ রাত আনুমানিক ০২.৪০ ঘটিকার সময় অজ্ঞাত নামা ০৩ জনের দুর্বৃত্তের একটি দল হাতে বন্দুক, ধারালো দা ও লোহার হাতুড়ী ইত্যাদি দেশীয় অবৈধ অস্ত্রশস্ত্র নিয়া পূর্ব পরিকল্পিতভাবে তার উপর অতর্কিত হামলা চালাই।

তার পরিবার জানায় , রাতের আধারে আমার ছেলের মাথার সামনে, পিছনে ও মাথার উভয় পাশে পর পর ০৪টি কোপ মারিয়া গুরুতর রক্তাক্ত হাঁড়কাটা জখম করে। প্যান্টের পিছনের পকেটে মানিব্যাগে থাকা নগদ টাকা এবং বিভিন্ন কাপড়-চোপড়, চাকুরীর প্রয়োজনীয় কাগজপত্র, প্রসাধনী সামগ্রি, ব্যাগ সহ জোর পূর্বক ছিনিয়ে নেয়। দুর্বৃত্তদের দা এর কোপ বাম হাত দিয়া প্রতিহত করাকালে তাহার বাম হাতের অনামিকা আঙ্গুলে স্বজোরে কোপ লাগিয়া গুরুতর রক্তাক্ত হাঁড়কাটা জখম হয়। ফলে প্রচুর রক্তক্ষরণ হইয়া সে মাটিতে পড়িয়া গেলে, জর্জরিত চিৎকারে পাড়ার লোকজন চারিদিক হইতে আগাইয়া আসিলে আসামীগণ কৌশলে পালাইয়া যায়। আমরা তড়িগড়ি করিয়া ঘটনাস্থলে উপস্থিত হইয়া ঘটনার বিস্তারিত অবগত হই ও জখমী ছেলেকে গুরুতর রক্তাক্ত জখম অবস্থায় গাড়ী যোগে চকরিয়া সরকারি হাসপাতালে নিয়ে আসি। কর্তব্যরত ডাক্তার জখমীর জখমের প্রাথমিক চিকিৎসার পর তাহার জখমের অবস্থা আশংকা জনক দেখিয়া তাহাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতালে রেফার করেন। কিন্তু জখমীর অবস্থা আরো অবনতি হইতে থাকিলে, আমরা তাহাকে দ্রুত চকরিয়া ইউনিক হাসপাতালে নিয়া ভর্তি করি।

পরবর্তীতে আহত রিকু কুমার দে এর মা বাদী হয়ে অজ্ঞাত ৩ জনকে আসামী করিয়া চকরিয়া থানায় একখানা অভিযোগ দায়ের করেন।