আজ, সোমবার | ২২শে এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ৯ই বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ



চকরিয়ায় সড়ক বিভাগের কর্মচারীদের ব্যবহার করে গাছ লুট ও জমি জবর দখল চেষ্টা

চকরিয়া প্রতিনিধিঃ

চকরিয়ায় সড়ক বিভাগের কর্মচারীদের ব্যবহার করে গাছ লুট ও জমি জবর দখল চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে। উপজেলার লক্ষ্যারচর ইউপির নলবিলা গেইটের দক্ষিণ পাশে এবং গ্যাস পাম্পের উত্তর পাশে বাগানে ১জুন’২২ইং সকাল আনুমানিক ৯টার দিকে দিকে ঘটেছে এ ঘটনা।

এঘটনায় উপজেলার লক্ষ্যারচর ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ডের উত্তর লক্ষ্যারচর, রুস্তম আলী চৌধুরী পাড়া গ্রামের মৃত সামশুল হুদা চৌধুরীর পুত্র সাবেক চেয়ারম্যান গোলাম মোস্তফা কাইছার বাদী নির্বাহী প্রকৌশলী কক্সবাজার ও চকরিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ বরাবরে লিখিত অভিযোগ করেন। এতে বিবাদী করা হয়েছে সড়ক ও জনপদ বিভাগ, চকরিয়ার কর্মচারী মোহাম্মদ সালাহ উদ্দিন, চকরিয়া পৌরসভা ৮নং ওয়ার্ডের ষ্টেশনপাড়ার মৃত লেদু ফকিরের পুত্র আবু ছালামকে।

অভিযোগে গোলাম মোস্তফা কাইছার জানিয়েছেন,তার নানা ঠান্ডা মিয়া সওদাগর জীবদ্দশায় রেজি: দলিল নং-১৩০০ তাং-২৯/০৫/১৯৪০ইং মূলে লক্ষ্যারচর মৌজার আর, এস ১৫১০নং খতিয়ানের আর, এস ১৯৬২/২৫৪নং দাগের ৮০ শতক জমির মধ্যে ৫০ শতক জমি মাদ্রাসার নামে এবং অবশিষ্ট ৩০ শতক জমি আমার দাদা ঠান্ডা মিয়ার নামে ক্রয় করে শান্তিপূর্ণভাবে ভোগ দখলে স্থিত আছেন। পরবর্তীতে বি.এস জরীপের সময় উপরোক্ত আর,এস খতিয়ান ও দাগের তুলনা মূলক বি.এস খতিয়ান নং-১২ ও ৫৭৭, বি.এস দাগ নং-২৩৪৮ ও ২৩৫০হয়। উক্ত জমি হতে দুটি দাগের মধ্যে ২৩৪৮ ও ২৩৫০নং দাগাদি হতে ৫৪ শতক জমি রেকর্ড হলেও ভুল বশত: বি,এস ২৩৫০নং দাগের ২৬ শতক জমি বি,এস ৫৭৭নং খতিয়ান লিপি হয়। উক্ত ভুল জরিপের বিরুদ্ধে বি,এস রেকর্ড সংশোধনের মামলা প্রক্রিয়াধীন। উক্ত জমিতে বিভিন্ন ধরনের গাছপালা রোপন করে বিগত ১৯৪০ ইং সন হতে শান্তিপূর্ণভাবে ভোগ দখলে স্থিত আছেন। কিন্তু সড়ক ও জনপদ বিভাগের অভিযুক্ত কর্মচারীর গত ১জুন’২২ইং সকাল অনুমানিক ০৯:০০ ঘটিকার সময় কতিপয় দুষ্কৃতিকারীর সাথে আতাত করে সড়ক ও জনপদ বিভাগের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তার নাম ভাঙ্গিয়ে দুর্লোভের বশে জনৈক মোহাম্মদ এমরান (৪০) পিতা: মমতাজুল হক সাং-মাইজঘোনা, ৪নং ওয়ার্ড, সাহারবিল ইউপির নিকট থেকে অবৈধ সুযোগ সুবিধা গ্রহণ করে আমাদের ভোগ দখলীয় জমিতে হিত গাছ পালা কর্তন করে আনুমানিক ০২ লক্ষাধিক টাকার ক্ষতি সাধন করে। বর্তমানে তাহারা সড়ক ও জনপদ বিভাগের নাম ভাঙ্গিয়ে আমাদের ভোগ দখলীয় জমি জবর দখল করবে, বাঁধা দিলে আমাদেরকে মারিবে, কাটিবে, খুন করিবে বলিয়া ব্যাপক হাকাবকা ও ভয়ভীতি প্রদর্শন করে চলছে। এ বিষয়ে সড়ক ও জনপদ বিভাগের চকরিয়া অফিসে দায়িত্বরত কর্মকর্তার সহিত যোগাযোগ করলে, তাহারা এই বিষয়ে কিছু জানেনা মর্মে প্রকাশ করেন। বর্তমানে বিবাদীগণ বর্ণিত জায়গায় গিয়ে সন্ত্রাসী মহড়া চালাচ্ছে এবং উক্ত জমি দখল করবে বলে হুমকি প্রদান করছে। উল্লেখিত বিবাদীগণ ভাড়াটিয়া
লোকজনসহ যে কোন মুহুর্তে আমাদের ভোগ দখলীয় জমি দখল করতে গেলে, তাহাদের দ্বারা মারামারি,
কাটাকাটি, রক্তপাত, খুন জখমসহ ঘটনাসহ শান্তিভঙ্গের আশঙ্খা প্রকাশ করেছেন।

সড়ক ও জনপথ বিভাগের চকরিয়া উপবিভাগীয় মোঃ দিদারুল আলম বলেন, সড়ক থেকে গাছ কাটা কিংবা দখল করে দেয়ার বিষয়টি তার দপ্তরের কোন অভিযান ছিলনা। কেউ এধরনের করে থাকলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

চকরিয়া থানার ওসি চন্দন কুমার চক্রবর্তী বলেন, ঘটনার বিষয়ে অভিযোগ পাওয়ার পর থানার একজন সহকারি উপপরিদর্শকের নেতৃত্বে একদল পুলিশ ঘটনাস্থলে পাঠানো হয়েছে।