আজ, সোমবার | ৪ঠা মার্চ, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ২০শে ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ



চকরিয়ার চিংড়িজোনে মুক্তিযোদ্ধা আবছারের ৩৩একর ঘের জবর দখলে হামলা, কর্মচারীকে কুপিয়ে জখম

চকরিয়া প্রতিনিধিঃ

চকরিয়া উপজেলার চিরিঙ্গা ইউনিয়নের চরণদ্বীপ মৌজার পানখালীর মুখ ৩৩একর বিশিষ্ট চিংড়ি ঘের জবর দখলে হামলা ও লুটপাটের ঘটনা ঘটেছে।এসময় ঘের কর্মচারী ফজলুল করিম বাচ্চু(৩২) কে হত্যা চেষ্টায় কুপিয়ে জখম করেছে।
সে ডুলাহাজারা ইউপির ১নং ওয়ার্ডের রিংভং ছগিরশাহকাটা গ্রামের মরহুম গোলাম ছোবহানের পুত্র।
৬এপ্রিল রাত ৮ঘটিকার সময় এ ঘটনা ঘটে।
জানাগেছে, চকরিয়া পৌরসভা ৭নং ওয়ার্ডের পালাকাটা গ্রামের বাসিন্দা কক্সবাজার জেলা আওয়ামীলীগের সাবেক ত্রাণ ও দূর্যোগ বিষয়ক সম্পাদক বীরমুক্তিযোদ্ধা মরহুম নুরুল আবছারের নেতৃত্বে ১৯৮৫ সালে মাতামুহুরী মৎস্যচাষ উন্নয়ন সমবায় সমিতি লিঃ রেজিঃ নং ১১০৬/৮৫ প্রতিষ্টা করেন। সমিতিতে প্রতিষ্টাতা পরিবারের প্রায় সদস্যসহ মোট ২৯জন সদস্য রয়েছে। সরকারের কাছ থেকে সমিতির নামে ৩৩ একর চিংড়ি ঘের বন্দোবস্তি নেন। সমিতিতে বর্তমানে প্রতিষ্টাতার ছেলে নুরুল মোক্তাদির সভাপতি ও অপর ছেলো মোঃ নুরুল আজিম সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালনসহ মৎস্যঘেরটি রক্ষনাবেক্ষণ করছেন।

সমিতির সভাপতি ও সম্পাদক অভিযোগ করেন, পিতার নেতৃত্বে ১৯৮৫ সালে মাতামুহুরী মৎস্যচাষ উন্নয়ন সমবায় সমিতি লিঃ প্রতিষ্ঠা ও মৎস্যঘেরে মালিকানা পাওয়ার পর থেকে পিতার মৃত্যুর পূর্ব মুহুর্ত ও বর্তমান সময় পর্যন্ত শান্তিপূর্ণভাবে ভোগ দখল ও রক্ষণাবেক্ষণ করে আসছেন। কিন্তু সম্প্রতি সময় থেকে পৌরসভা ৭নং ওয়ার্ডের পালাকাটা খোন্দকার পাড়ার মৃত মোঃ হাসেমের পুত্র ওসমান গনির নির্দেশে ও নেতৃত্বে চিরিঙ্গা ইউপি ২নং ওয়ার্ডের পালাকাটা গ্রামের মৃত কবির আহমদের পুত্র মোস্তাক আহমদ, সাবেক মেম্বার বেলাল উদ্দিন, মোবারক আলী ছুট্টো, মৃত কবির আহমদের পুত্র মোজাম্মেল হকসহ ১০/১২জন সন্ত্রাসী বাহিনী নিয়ে চরণদ্বীপ মৌজার পানখালীর মুখ ৩৩একর বিশিষ্ট চিংড়ি ঘের জবর দখলে হামলা ও লুটপাট চালায়। এসময় ঘেরের খামার ঘরে থাকা কর্মচারী ফজলুল করিম বাচ্চু(৩২) কে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে হত্যা চেষ্টা চালিয়ে গুরুতর জখম করে। ঘের থেকে লুট করে নিয়ে যায় বিভিন্ন মালামাল। এসময় কয়েক রাউন্ড ফাঁকা গুলিও বর্ষণ করে অস্ত্রধারীরা। পরে খবর পেয়ে স্থানীয়দের সহযোগিতায় আহতকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন। এঘটনায় মৎস্য ঘের মালিক ও সমিতি কর্তৃপক্ষ মামলার প্রস্তুতি নিয়েছেন বলে জানান।
চকরিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) চন্দন কুমার চক্রবর্তী জানান, ঘটনার বিষয়ে অবহিত হওয়ার তাৎক্ষনিকভাবে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। লিখিত অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।