আজ, মঙ্গলবার | ২১শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ৭ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ



চকরিয়ায় দুই কাজীর সীমানা নিয়ে দ্বন্ধ, নিকাহ রেজিস্ট্রি নিয়ে হামলা, আহত ২

চকরিয়া প্রতিনিধিঃ

চকরিয়ায় নতুন নিয়োগপ্রাপ্ত কাজীর সীমানা নিয়ে দ্বন্ধে নিকাহ রেজিস্ট্রি নিয়ে হামলার ঘটনা ঘটেছে। হামলায় এক কাজীসহ ২জন আহত হয়েছে। চকরিয়া পৌরসভা ৮নং ওয়ার্ডের বাশঘাট রোডের বায়তুল হাকিম জামে মসজিদের সামনে এ ঘটনা ঘটেছে।

অভিযোগে জানাগেছে, গত ১৪ জানুয়ারি ২০২৪ইং তারিখে সরকারের আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রণালয় আইন ও বিচার বিভাগ, বিচার শাখা-৭ এর এক অফিস স্মারকে চকরিয়া পৌরসভা ৪ ও ৬নং ওয়ার্ডের নতুন মুসলিম বিবাহ ও তালাক রেজিস্ট্রার নিয়োগ পান চকরিয়া পৌরসভা ৪নং ওয়ার্ডের চিরিংগা দক্ষিণ হাসপাতাল পাড়া নিবাসী মোজাফ্ফর আহমদের পুত্র মোহাম্মদ অহিদুল আলম। অভিযোগ উঠেছে তাহার স্থায়ী ঠিকানা সাহারবিল ইউনিয়নের রামপুর গ্রামে হলেও তথ্য গোপন করে এবং রাতারাতি ভোটার হস্তান্তর দেখিয়ে পৌরসভা ৪ ও ৬নং ওয়ার্ডে নিয়োগ নিয়েছেন, যা নিয়ম বিধি লঙ্গন। নির্দিষ্ট এলাকা নিয়ে তাকে নিয়োগ দেয়া হলেও তা লঙ্গন করে প্রতিনিয়তই ভিন্ন এলাকায় গিয়ে নিকাহ রেজিস্ট্রি করে আসছেন।

চকরিয়া পৌরসভার প্রবীণ কাজী শহিদুল্লাহ অভিযোগ করে জানান, সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ যেহেতু কয়েকটি ওয়ার্ডে এলাকা ভিত্তিক কিছু নতুন কাজী নিয়োগ দিয়েছেন, সেহেতু তার কোন আপত্তি নেই। কিন্তু পৌরসভা ৪ ও ৬নং ওয়ার্ডের নতুন কাজী মোহাম্মদ অহিদুল আলম তা তোয়াক্কা করছেনা। তার (কাজী শহিদুল্লাহ) অফিসের অন্তত ২শ গজের মধ্যে ৮নং ওয়ার্ডের বাশঘাট রোডের বায়তুল হাকিম জামে মসজিদের ভেতরে ভিন্ন ওয়ার্ড (৪নং) থেকে এসে কাজী অহিদের নির্দেশমতে বিবাহ (নিকাহ রেজিস্ট্র) পড়াচ্ছেন অহিদের সমন্ধী অফিস সহকারি মামুন। গত শুক্রবার দুপুর ২.৩০টার দিকে বিষয়টি জানতে পেরে কাজী শহিদুল্লাহর পুত্র হাফেজ মাওলানা ইয়াছিন নেওয়াজ ও তার ফুফাত ভাই কাজী মোঃ সাঈদ আবদুল্লাহ ঘটনাস্থলে গিয়ে নিকাহ বালাম রেজিস্ট্রার জব্দ করার চেষ্টা করেন। এসময় মসজিদের বাইরে বাশঘাট রোডে এসে কাজী অহিদের ভাড়াটিয়া লোকজন অতর্কিত হামলা চালায়। হামলায় কাজী শহিদুল্লাহর পুত্র হাফেজ মাওলানা ইয়াছিন নেওয়াজ ও তার ফুফাত ভাই কাজী মোঃ সাঈদ আবদুল্লাহ আহত হন। যা স্থানীয়দের সি সি টিভি ক্যামরার ফুটেজে সংরক্ষিত আছে। হামলাকারী কাজীর সহকারি মামুন হাসপাতাল পাড়ার মৃত হাজী বশিরের পুত্র বলে জানাগেছে।

অভিযোগে প্রবীণ কাজী শহিদুল্লাহ সরকারের আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রণালয় আইন ও বিচার বিভাগসহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে নিয়োগ বিধি লঙ্গনের দায়ে চকরিয়া পৌরসভা ৪ ও ৬নং ওয়ার্ডের নতুন নিয়োগ পাওয়া কাজী মোহাম্মদ অহিদুল আলমের নিকাহ ও তালাক রেজিস্ট্রি লাইসেন্স বাতিলের জন্য দাবী জানিয়েছেন।