আজ, সোমবার | ৪ঠা মার্চ, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ২০শে ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ



সিএনজি-মাহিন্দ্র চলাচল বন্ধে চকরিয়া-লামা-আলীকদম সড়কে আজ থেকে পরিবহন ধর্মঘট

চকরিয়া প্রতিনিধিঃ
চকরিয়া-লামা-আলীকদম সড়কে সিএনজি চালিত টেক্সী ও মাহিন্দ্র গাড়ী যাত্রী নিয়ে চলাচলের কারণে সড়ক দুর্ঘটনা বেড়েছে। তাই এসব গাড়ী চলাচল বন্ধ করতে কক্সবাজারের চকরিয়া ও বান্দরবান জেলাসহ ওই জেলার লামা ও আলীকদম উপজেলার প্রশাসনিক কর্মকর্তা ও জনপ্রতিনিধিদের কাছে আবেদন করেন বাস-জীপ মালিক ও শ্রমিক সংগঠন। গত ১২ ডিসেম্বর আবেদন করলেও সংশ্লিষ্টদের পক্ষ থেকে সাড়া মেলেনি। তাই মঙ্গলবার ( ৬ ফেব্রুয়ারী) সকাল ৬ টা থেকে থেকে চকরিয়া-লামা-আলীকদম সড়কে বাস ও জীপ চলাচল অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধের ডাক দিয়েছে চকরিয়া-লামা-আলীকদম-থানছি বাস ও জীপ মালিক-শ্রমিক সমবায় সমিতি।
সোমবার (৫ ফেব্রুয়ারী) সন্ধ্যা ৬ টায় চকরিয়া শহীদ আব্দুল হামিদ বাস টার্মিনালস্থ বাস-জীপ মালিক ও শ্রমিক সংগঠনের কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে পরিবহন ধর্মঘটের ডাক দেয়া হয়।
সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য রাখেন চট্টগ্রাম-লোহাগাড়া-চকরিয়া-লামা-আলীকদম-বদরখালী- মহেশখালী-সুয়ালক-বান্দরবান সড়ক যানবাহন মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক সোহেল রানা পারভেজ। এসময় উপস্থিত ছিলেন মালিক সমিতির সভাপতি নুরুল হোসেন কমিশনার, পরিবহন জীপ মালিক সমিতির সভাপতি ফরিদ আহমেদ, আরকান সড়ক পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি জহিরুল ইসলাম, যুগ্ম সম্পাদক কামাল আজাদ, জীপ মালিক সমিতির সম্পাদক জাফর আলম, শ্রমিক ইউনিয়ন সভাপতি রফিক আহমদসহ আরকান সড়ক পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়ন, চকরিয়া, লামা-আলীকদম রোড পরিবহন, বাস ও জীপ মালিক-শ্রমিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।
লিখিত বক্তব্যে দাবী করা হয় গত ১২ ডিসেম্বর আবেদন করার পর দীর্ঘদিন অতিবাহিত হলেও প্রশাসন সিএনজি অটোরিকশা ও মাহিন্দ্র চলাচল বন্ধ করার কোন পদক্ষেপ নেয়নি। আবেদনকারীদের সাথে যোগাযোগও করেনি চকরিয়া ও বান্দরবানের প্রশাসন বা জনপ্রতিনিধিরা। তাই দাবী বাস্তবায়ন না হওয়া পর্যন্ত অনির্দিষ্টকাল চকরিয়া-লামা-আলীকদম সড়কে বাস ও জীপ ধর্মঘট ডাকা হয়েছে। এই ধর্মঘট মঙ্গলবার সকাল ৬ টা থেকে শুরু হবে