আজ, বুধবার | ২৪শে এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ১১ই বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ



কক্সবাজারের সদর থানাধীন খুরুশকুলের কুলিয়াপাড়ায় দেশীয় তৈরী অস্ত্র-শস্ত্রে সজ্জিত হয়ে ডাকাতির প্রস্তুতিকালে ডাকাত চক্রের ০৮ সদস্য র‌্যাব-১৫ কর্তৃক গ্রেফতার; দেশীয় তৈরী অস্ত্র-শস্ত্র উদ্ধার

 

 

 

 

 

সংবাদ দাতা মোঃ শাহেদুল ইসলাম

কক্সবাজারের সদর থানাধীন খুরুশকুলের কুলিয়াপাড়ায় দেশীয় তৈরী অস্ত্র-শস্ত্রে সজ্জিত হয়ে ডাকাতির প্রস্তুতিকালে ডাকাত চক্রের ০৮ সদস্য র‌্যাব-১৫ কর্তৃক গ্রেফতার; দেশীয় তৈরী অস্ত্র-শস্ত্র উদ্ধার

১। র‌্যাব-১৫ দায়িত্বাধীন এলাকা কক্সবাজার ও বান্দরবান জেলায় বিরাজমান নানাবিধ অপরাধ দমনে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। দায়িত্বাধীন কক্সবাজার জেলায় চুরি, ডাকাতি ও ছিনতাই এর সাথে জড়িত চক্রগুলোকে আইনের আওতায় নিয়ে আসাসহ পর্যটন নগরীতে আগত দেশী-বিদেশী পর্যটক ও স্থানীয় জনসাধারণের জানমালের নিরাপত্তা বিধান করতে সার্বক্ষনিকভাবে র‌্যাবের গোয়েন্দা তৎপরতা ও নজরদারী অব্যাহত রয়েছে।

২। এরই ধারাবাহিকতায় গত ০৪ ডিসেম্বর ২০২৩ তারিখ র‌্যাবের আভিযানিক দল গোপন সূত্রে জানতে পারে যে, কক্সবাজার জেলার সদর থানাধীন কক্সবাজার পৌরসভার ১২নং ওয়ার্ডের সুগন্ধা সী-বীচ হইতে লাবণী সী-বীচ গামী রাস্তার পাশে হোটেল সিগাল এর পশ্চিম পাশে ঝাউবনের ভিতর একটি ডাকাত দল ডাকাতি সংঘটনের উদ্দেশ্যে সমবেত হয়ে প্রস্তুতি গ্রহণ করছে। উক্ত তথ্যের ভিত্তিতে গতকাল রাত অনুমান ২০.০০ ঘটিকার সময় র‌্যাব-১৫, সিপিএসসি’র একটি চৌকস আভিযানিক দল বর্ণিত স্থানে একটি বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে। এ সময় ডাকাত চক্রটি র‌্যাবের অভিযানিক দলের উপস্থিতি বুঝতে পেরে দেশীয় অস্ত্র-শস্ত্রসহ দিক-বিদিক দৌড়ে ঘটনাস্থল থেকে পালানোর চেষ্টাকালে চক্রের ০৮ সদস্যকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়। পরবর্তীতে উপস্থিত সাক্ষীদের সম্মুখে গ্রেফতারকৃত ডাকাত চক্রের হেফাজত হতে সর্বমোট ০১টি স্টিলের টিপ ছুরি, ০৪টি ছুরি, ০১টি স্কু ড্রাইভার, ০১টি হাতুড়ি, ০১টি টর্চ লাইট, ০৪টি মোবাইল (২টি এন্ড্রয়েট এবং ২টি বাটন ফোন), ০৫টি সীম কার্ড এবং ৩৫০/- (তিনশত পঞ্চাশ) টাকা উদ্ধার করা হয়।

৩। গ্রেফতারকৃত ডাকাত চক্রটির বিস্তারিত পরিচয় :

(১) আবু হেনা বাপ্পি (২৭), পিতা-আবু তালেব, সাং-লাইট হাউজ পাড়া, থানা-সদর, জেলা-কক্সবাজার।
(২) রনি (২০), পিতা-আব্দুল কাদের, সাং-পাহাড়তলী (ইসলামপুর), থানা-সদর, জেলা-কক্সবাজার।
(৩) মোঃ ইসমাইল (৩১), পিতা-মৃত কাশেম, সাং-আলেকশাহ, থানা-বাঁশখালী, জেলা-কক্সবাজার, এ/পি : সাং ঘুমগাছ তলা, থানা-সদর, জেলা-কক্সবাজার।
(৪) মোঃ মঞ্জুর আলম (৩০), পিতা-মৃত শামসুল আলম, সাং-বাদশার ঘোনা (খাজা মঞ্জিল), থানা-সদর, জেলা-কক্সবাজার।
(৫) মোঃ আব্দুল্লাহ (২৫), পিতা-মৃত ফারুক, সাং-সমিতি পাড়া, থানা-সদর, জেলা-কক্সবাজার।
(৬) মোঃ আলাউদ্দিন (৪২), পিতা-সৈয়দ আহম্মদ, সাং-উত্তর নুনিয়ারছড়া, থানা-সদর, জেলা-কক্সবাজার।
(৭) মোঃ আমিন (৩৫), পিতা-মৃত আব্দুল মুন্নাফ, সাং-বাদশার ঘোনা, থানা-সদর, জেলা-কক্সবাজার।
(৮) মোঃ তারেক (২০), পিতা-মৃত খোকন, সাং-নাজিরার টেক, থানা-সদর, জেলা-কক্সবাজার।

৪। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায়, চক্রটি একত্রে সমবেত হয়ে পরস্পর জ্ঞাতসারে দেশীয় অস্ত্র-শস্ত্রসহ উক্ত স্থানে ডাকাতি করার উদ্দেশ্যে প্রস্তুতি গ্রহণ করছিল। এছাড়াও ইতিপূর্বে চক্রটি কক্সবাজারের বিভিন্ন পয়েন্টে দেশী-বিদেশী পর্যটক ও স্থানীয় জনসাধারণকে অস্ত্র-শস্ত্রের ভয়-প্রীতি প্রদর্শন করে ডাকাতি ও ছিনতাই এর মত নানাবিধ অপরাধের সাথে জড়িত ছিল।

৫। উদ্ধারকৃত আলামতসহ গ্রেফতারকৃত ডাকাত চক্রের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণার্থে কক্সবাজার জেলার সদর মডেল থানায় লিখিত এজাহার দাখিল করা হয়েছে ।

ধন্যবাদ।