আজ, সোমবার | ৪ঠা মার্চ, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ২০শে ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ



সম্পূর্ণ স্বচ্ছতা ও নীতিনৈতিকতার ভিত্তিতে উপকারভোগীদের মাঝে জেলা পরিষদের বিভিন্ন অনুদানের চেক বিতরণ

নিজস্ব প্রতিবেদক  ঃ সম্পূর্ণ স্বচ্ছতা ও নীতিনৈতিকতার ভিত্তিতে কক্সবাজার জেলা পরিষদের বিভিন্ন সহায়তা কার্যক্রমের অনুদানের চেক বিতরণ করা হয়েছে। এতে উপকার ভোগীদের মাঝে বইছে ঈদের আনন্দ।

এক সময়ে কক্সবাজার জেলা পরিষদে উপকার ভোগীদের কাছ থেকে চেক বিতরণ ও নানা সহায়তা কার্যক্রমে চলত বিভিন্ন ওজুহাতে ঘুষ বানিজ্য সহ অবৈধ  অর্থ আদায়। ঘুষের অর্থ দিতে ব্যর্থ হলে উপকার ভোগীরা নানা হয়রানির শিকার হত।

এক সময়ে জেলা পরিষদে এমনসব কার্যক্রম চলত তা অনেকের মুখে মুখে বলতে শুনা গেছে। অনেকে লিখিত অভিযোগ করেছে।পুরনো দিনের অভিযোগের যেন শেষ নেই। দিন শেষে রাত রাত শেষে দিন এভাবে আর কত?  একদিন এসব কার্যকলাপ বন্ধ হবে এমন আশায় কক্সবাজারবাসী অপেক্ষার প্রহর গুন ছিল। আশারবাণী ছিল  নতুন চেয়ারম্যান দায়িত্ব পেলে আগের দিনের সেই অন্ধকার যুগের দিন শেষ হবে। স্বচ্ছতার আলোয় আলোকিত হবে জেলা পরিষদ।

চেয়ারম্যান শাহিনুল হক মার্শাল যোগদানের পর থেকে পাল্টে গেছে চিত্র। আগের সেই ঝিমিয়ে থাকা এবং চেয়ারম্যানের চেয়ারে চেয়ারম্যান না থাকার চিত্র নেই। বর্তমান চেয়ারম্যান প্রতিদিন অফিস করেন। এমনও নজির আছে তিনি সরকারি ছুটির দিনেও জেলার গণমানুষের সেবায় নিয়োজিত থাকেন।

২৫ জুন সকাল থেকে বিকেল ৪ টা  পর্যন্ত সেবামূলক এ প্রতিষ্ঠানে অসুস্থ, অসচ্ছল ও বিভিন্ন সহায়তা কার্যক্রমের অংশ হিসেবে প্রায় ৫শ’ জনকে অনুদানের চেক বিতরণ করা হয়। এছাড়া শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসহ সামাজিক সংগঠনসমূহকে  চেয়ারম্যান শাহিনুল হক মার্শাল নিজের হাতে চেক তুলে দেন। অনুদান চেক পেয়ে স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলেন চেক প্রাপ্তরা। অনেকে চেয়ারম্যানের জন্য দোয়া করেন। বলতে শুনা যায় এতো বেশি সহজ সেবা, সহযোগিতা ও উন্নয়ন জেলা পরিষদে কখনো ছিলো না৷

অনুদানের চেক পেয়ে অনেকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করতে দেখা গেছে। অনুদান প্রাপ্ত জেলার ঐতিহ্যবাহী শিক্ষা ও সমাজ সেবামূলক অরাজনৈতিক যুব সংগঠন জুভেনাইল ভয়েস ক্লাবের সভাপতি ফেসবুকে স্টাটাস দিয়ে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে লিখেছেন তা হুবহু তুলে ধরা হলো ঃ

কথা দিয়ে কথা রেখেছেন জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান জনাব শাহিনুল হক মার্শাল ভাই।
আলহামদুলিল্লাহ। অসংখ্য ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা কক্সবাজার জেলা পরিষদের মান্যবর সুযোগ্য চেয়ারম্যান জনাব শাহীনুল হক মার্শাল ভাইয়ের প্রতি। তিনি কথা দিয়ে কথা রেখেছেন। আজ অনুদানের চেক হাতে পেলাম। শুধু ১০ টাকার রাজস্ব স্টাম্প ছাড়া কাউকে এক টাকাও দিতে হয়নি। শুধু জুভেনাইল ভয়েস ক্লাবের জন্য নয় লক্ষ লক্ষ টাকার সকল প্রকার চেক বিতরণ করছেন মাত্র ১০ টাকার স্টাম্প নিয়ে। কাউকে এক টাকা দালালি দিতে হয়নি আবার পরে দিতে হবে এমন কোন কথাও কাউকে দিতে হয়নি ।

তিনি জেলার ঐতিহ্যবাহী বৃহত্তর শিক্ষা ও সমাজ সেবামূলক অরাজনৈতিক যুব সংগঠন জুভেনাইল ভয়েস ক্লাবের জন্য সাধ্যমত সহযোগিতা অনুদানের চেক প্রদান করেছেন এবং আগামীতেও ক্লাবের পাশে থাকবেন এবং সব ধরনের সহযোগিতা করবেন বলে কথা দিয়েছেন। ক্লাবের পক্ষ থেকে চেয়ারম্যান মহোদয়ের হাত থেকে চেক গ্রহণ করেছেন ক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা ও সভাপতি এ.কে.এম রিদওয়ানুল করিম।

এখানে বলাবাহুল্য এভাবে স্বচ্ছতা ও নীতিনৈতিকতা নিয়ে জেলা পরিষদের কর্মকান্ড পরিচালনা করবেন বলে তিনি নির্বাচনের আগে কথা দিয়েছিলেন। সে অনুযায়ী তিনি কথা দিয়ে কথা রেখে চলছেন। মান্যবর চেয়ারম্যান মহোদয়ের জন্য সব সময় শুভ কামনা ও দোয়া রইল।
পরিশেষে কক্সবাজার জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তাসহ সকল কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি।

চেক বিতরণকালে জেলা পরিষদের সহকারী প্রকৌশলী মোহাম্মদ সাইফুদ্দিন, সদস্যরাসহ অন্যান্য কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা উপস্থিত ছিলেন।