আজ, মঙ্গলবার | ২৭শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ১৪ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ



হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসকদের ১২ দফা দাবীতে চকরিয়ায় মানববন্ধন ও প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্বারকলিপি প্রদান

চকরিয়া (কক্সবাজার) প্রতিনিধিঃ
হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসকদের নামের পূর্বে ডাক্তার পদবী লেখাসহ ১২ দফা দাবী আদায়ের লক্ষে এবং মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সভাপতিত্বে মন্ত্রীপরিষদ বিভাগ কর্তৃক হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসা শিক্ষা আইন-২০২১ অনতিবিলম্বে মহান জাতীয় সংসদে পাশ করার দাবীতে বাংলাদেশ ডি এইচ এম এস ডক্টরস্ ফাউন্ডেশন (রেজি নং- এস ১২৬০৪/১৭) চকরিয়া উপজেলা শাখার উদ্যোগে ও বিভিন্ন সংগঠনের অংশ গ্রহনে ১৯জুন’২২ইং সকাল ১০ঘটিকায় উপজেলা পরিষদের সামনে বিশাল মানববন্ধন ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার মাধ্যমে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বরাবরে স্বারকলিপি দেয়া হয়েছে।
ডাঃ মোঃ হামিদুল হকের পরিচালনায় মানববন্ধন ও স্বারকলিপি প্রদান পরবর্তী সমাবেশে বক্তব্য রাখেন ডাঃ আবদুল মাবুদ ছিদ্দিকী, ডাঃ হোছাইন আহমদ, ডাঃ এইচএম রফিক প্রমূখ।
বক্তারা বলেন, হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসা ব্যবস্থা
প্রায় ২২৫ বছর যাবৎ সারাবিশ্বে আর্তমানবতার সেবায় নিয়োজিত। স্বাধীন বাংলাদেশে প্রায় ২০০ বছর যাবৎ হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসা ব্যবস্থার মাধ্যমে সবশ্রেণী পেশার মানুষ চিকিৎসা সেবা পেয়ে আসছেন। ভারতে হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসার উত্তোরোত্তর উন্নতি সাধিত হলেও বাংলাদেশে অনেকটা পিছিয়ে। বর্তমানে বাংলাদেশের বিভিন্ন সেক্টরে উন্নয়ন সাধিত হলেও হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসা বিজ্ঞানের তেমন কোন উন্নয়ন লক্ষ্য করা যায়নি। সে ক্ষেত্রে সরকার নিয়ন্ত্রিত বাংলাদেশ হোমিওপ্যাথিক বোর্ড আশানুরূপ পদক্ষেপ নিতে ব্যর্থ হয়েছে। বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী হোমিওপ্যাথির প্রতি সহানুভূতিশীল থাকা স্বত্বেও বিভিন্ন ষড়যন্ত্র ও জটিলতায় হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসা ব্যবস্থা ও হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসাকগণ আজও অবহেলিত। দীর্ঘদিনের সরকার অনুমোদিত ও স্বীকৃত প্রতিষ্ঠান থেকে হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসা শাস্ত্রে লেখা পড়া করে উত্তীর্ন হয়েও হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসকদের নামের পূর্বে ডাক্তার (ডাঃ) পদবী লেখা বন্ধ করার ষড়যন্ত্র চলছে। এক অদৃশ্য কারণে হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসা শিক্ষা আইন, হোমিওপ্যাথিক বিশ্ববিদ্যালয়, হোমিও রিসার্চ সেন্টার/গবেষণা কেন্দ্র,
ডি এইচ এম এস কোর্সের মান নির্ধারণ ও সহজ শর্তে উচ্চ শিক্ষার ব্যবস্থা করা সহ জরুরী ১২দফা দাবী তুলে ধরা হয়।
মানববন্ধনে অংশ গ্রহণকারী বিভিন্ন সংগঠনের মধ্যে
বাংলাদেশ ডি এইচ এম এস ডক্টরস্ ফাউন্ডেশন, বাংলাদেশ হোমিওপ্যাথিক ছাত্র অধিকার সংগঠন, এম ইসলাম জসিম উদ্দিন হোমিওপ্যাথিক মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল (প্রস্তাবিত), চকরিয়া হোমিওপ্যাথিক মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতলা (প্রস্তাবিত), বি এইচ এম এ চকরিয়া উপজেলা শাখা, চকরিয়া আদর্শ হোমিওপ্যাথিক ডাক্তার পরিষদ, চট্টগ্রাম হোমিওপ্যাথিক উন্নয়ন সোসাইটি।