আজ, মঙ্গলবার | ২৭শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ১৪ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ



কক্সবাজার শহরে ছিনতাইকারীসহ অপরাধী চক্রের তৎপরতা বৃদ্ধি

ছবি ঃ ছিনতাইকারী
শাহজাহান চৌধুরী শাহিন ঃ

পবিত্র ঈদ-উল ফিতর-কে ঘিরে পর্যটন নগরী কক্সবাজার শহরের গুরুত্বপূর্ণ স্থানে পকেটমার, ছিনতাই করতে আস্তানা গেড়েছে ২৫/৩০ জনের ছিনতাইকারী সংঘবদ্ধ চক্র।
এক অনুসন্ধানে জানা গেছে, পর্যটন শহরের কক্সবাজার সদর হাসপাতাল সড়ক, ফুয়াদ আল খতিব হাসপাতাল সড়ক, লালদীঘির পূর্ব পাড়, বাজার ঘাটা, টেকপাড়া, রুমালিয়ার ছড়া, হাশেমিয়া মাদ্রাসা এলাকা,বিজিবি ক্যাম্প এলাকা, কলাতলি বাইপাস সড়ক, জেলগেট আশপাশ এলাকা ও বাসটার্মিনাল সহ শহরের বিভিন্ন শপিং মলকে টার্গেট করে পকেটমার, ছিনতাইকারী, ঝাপটা পার্টির তৎপরতা চালাচ্ছে।
শহরে বিভিন্ন স্থানে এই দূধর্ষ অপরাধী চক্র আস্তানা গেড়ে বসে। অপরাধীরা ঘটনার পর ধরা না খেতে তাদের আস্তানায় চলে যায়। ঘটনার শিকার ব্যক্তিদের কাছ থেকে ছিনতাই, পকেট চুরি করা, মালামাল নিয়ে চম্পট দেওয়ার সময় এই চক্রের অন্যান্য লোকজন ভদ্র বেশে ঘটনাকারীকে ছাড়িয়ে নেয়।
২৯ এপ্রিল শুক্রবার রাত সাড়ে ৯ টার দিকে শহরের ফুয়াদ আল খতিব হাসপাতাল রোড়ের নতুন শেভরণ হাসপাতালের সামনে এক দম্পতির সব কিছু ছিনিয়ে নিয়েছে ছিনতাইকারী চক্র। ওই ব্যক্তি স্ত্রীকে ডাক্তার দেখিয়ে নতুন শেভরণ হাসপাতালের সামনে ফার্মেসি থেকে ওষুধ কেনার জন্য গিয়ে এ ঘটনার শিকার হন।
তাদেরকে ৪/৫ জন ছিনতাইকারী চারদিকে ঘিরে ফেলে ছুরির ভয় দেখানো হয়। ভয়ে তারা সব কিছু দিয়ে দেন। এক পর্যায়ে উপস্থিত লোকজন ধাওয়া করলে ছিনতাইকারী চক্র পালিয়ে যায়।
প্রত্যক্ষদর্শীদের অনেকে এক ছিনতাইকারীকে সনাক্ত করেছে। এই ছিনতাইকারীর নাম রাজ্জাক প্রকাশ লালু। তার বাড়ি রামু খুনিয়া পালং রাবেতা এলাকায় হলেও বসবাস করেন শহরের রুমালিয়ার ছড়া এলাকায়। শহরের দুর্ধর্ষ ছিনতাইকারী খায়রুল আমিনের ভগ্নিপতি এই লালু বলে জানা গেছে। ইতোপূর্বে ছিনতাইকালে অনেক বার ধরা পড়ে জেলও খেটেছে। তার বিরুদ্ধে রামু ও কক্সবাজার থাকায় বহু মামলা রয়েছে বলে একটি সুত্র জানিয়েছেন।
কক্সবাজার সদরের ঝিলংজা ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ডের মেম্বার মো. ইউনুচ জানিয়েছেন,
কিছুদিন আগে আমার সামনে ছিনতাইকারী রাজ্জাক প্রকাশ লালু কলাতলি বাইপাস সড়কে একজনকে ছুরির ভয় দেখিয়ে ছিনতাই করছিল। তাকে ধরার জন্য এগিয়ে গেলে সে পালিয়ে যায়। আমি চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি তাকে ধরার জন্য। কিন্তু সামনে পড়ছে না বলে ধরা সম্ভব হচ্ছে না।
এরআগে গত শুক্রবার রাত ৮ টার দিকে লালদিঘীর পূর্ব পাড়ে নক্ষত্র নামক দোকানে এক নারীকে উত্যক্ত করে তিন জনের ছিনতাইকারী চক্র।
জনতা দুই জনকে ধরে ফেলেন।
পরে সংঘবদ্ধ আরো কয়েকজন ছিনতাইকারী এসে জনতার হাত থেকে ছিনিয়ে নিয়ে যায় আটক। ছিনতাইকারীদের।
২৫ এপ্রিল সোমবার দুপুর ২ টার সময় টমটম যাত্রীবেশী ছিনতাইকারী চক্র আবু জাফর নামের একজনকে ছুরিকাঘাত করে সর্বস্ব লুট করেছে।
ছুরিকাহত আবু জাফর জানান, তিনি কক্সবাজার বাস টার্মিনাল হতে টমটম যোগে হাশেমিয়া মাদ্রাসা এলাকায় আসছিল। টমটমে আরও কয়েকজন যাত্রী বেশে ছিনতাইকারী ছিল।