আজ, শুক্রবার | ৩রা ডিসেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ১৮ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ



কক্সবাজার সোসাইটির গৌরবের ১১তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপন

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ

কক্সবাজারের ঐতিহ্যবাহী সামাজিক, সেচ্ছাসেবী-মানবাধিকার ও পরিবেশবাদী সংগঠন “কক্সবাজার সোসাইটি”১১তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উৎসব মুখর পরিবেশে উদযাপন করা হয়েছে। আলোচনা, কেক কাটা ও প্রক্তন- বর্তমান নেতৃবৃন্দদের উপস্থিতিতে মুখরিত হয় অনষ্ঠান প্রাঙ্গন। আলোচনা সভায় মিলিত হয়ে বক্তারা বলেছেন- কক্সবাজার স্বার্থ সংরক্ষণে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। নতুন প্রজন্মকে দেশ গড়ার দীপ্ত শপতে বলিয়ান করে অসাম্প্রদায়ীক বাংলাদেশ বিনির্মাণে কাজ করতে হবে। গতকাল শুক্রবার বিকাল ৩টায় এক অভিজাত হোটেলে আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন কমরেড গিয়াস উদ্দীন। প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন সেক্টর কমাডার্স ফোরাম-মুক্তিযুদ্ধ’৭১ এর সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মো: আলী, প্রধানবক্তা হিসাবে উপস্থিত ছিলেন কক্সবাজার জেলা দায়রা জজ আদালতের পি.পি এড: ফরিদুল আলম, বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন কক্সবাজার মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক মোহাম্মদ রুহুল আমিন, সংগঠনের সহ-সাধারণ সম্পাদক মো:সুলতান মাহামুদ এর সঞ্জালণায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপন পরিষদের আহবায়ক এড: আব্দুর রহিম। শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপন পরিষদের সদস্য সচিব মো: ওসমান গণি। সংগঠনের নেতৃবৃন্দরা এতে ব্যক্তব্য রাখেন। নেতৃবৃন্দরা হলেন সিনিয়র সহ-সভাপতি প্রকৌশলী বদিউল আলম, সাধারণ সম্পাদক অধ্যপক মো: হাশেম উদ্দীন, সহ-সভাপতি এড: মো: ইসলাম সহ- সাধারণ সম্পাদক সাংবাদিক কলোল দে চৌধুরী, আইন বিষয়ক সম্পাদক এড:সাকী এ কাউছার, সাংগঠনিক সম্পাদক আরিফুল রহিম, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক মো: আয়ুব আলী, যুব বিষয়ক সম্পাদক তারেকুর রহমান, নির্বাহী সদস্য ইরফানুল হক। প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠান মালার শুরুতে পবিত্র কোরআন থেকে তেলোয়াত করেন তৌহিদুল ইসলাম, এইসময় প্রধান অতিথির বক্তব্যে বীর মুক্তিযোদ্ধা মো: আলী বলেন- অপরিকল্পিত উন্নয়নের ফলে শহরবাসির দূর্ভোগ চরম পর্যায়ে পৌছেছে, এরফলে প্রধান সড়কের পার্শ্ববর্তী সুুউচ্ছ ড্রেনেজ ব্যবস্থার কারণে স্থানীয় অধিবাসিদের চলাচলেন পদকে বিপতের সম্মুখীন করেছে। প্রধান বক্তা পি.পি এড: ফরিদুল আলম বলেন- বর্তমান সরকারের বিভিন্ন উন্নয়ন মূলক প্রকল্প গ্রহণের মাধ্যমে কক্সবাজার কে গড়ে তুলার লক্ষে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করতে হবে। বিশেষ অতিথি রুহুল আমিন বলেন- মিয়ানমার ও ভারত থেকে যে পরিমাণ বিভিন্ন ধরণের মাদক বাংলাদেশের অভ্যন্তরে প্রবেশ করছে এতে করে আগামী নতুন প্রজন্মকে ও মাদক দ্রব্যের আগ্রাসনকে রুখে দাড়াতে “কক্সবাজার সোসাইটির” সকল নেতৃবৃন্দকে ভ্যানগার্ডের ভূমিকা পালন করতে হবে। এই সময় উপস্থিত ছিলেন শিল্পী এস,এম সিরাজ, অবসর প্রাপ্ত সার্জেন আবু তাহের, ডাঃ নাজিম উদ্দীন, ডাঃ অমর কান্তি দাশ, কায়ছার হামিদ, শফিউলাহ সিকদার, আবু মুছা, হেলাল উদ্দীন, আমানুল হক আমান, সাংবাদিক মো: আমান উলাহ, এড: নজরুল ইসলাম খান, খোকনচন্দ্র পাটোয়ারী, জুভেনাইল ভয়েস ক্লাবের সভাপতি এ.কে.এম রিদুয়ানুল করিম, বিল্পব মুন্না, আজম খান, মো: সাজ্জাদ, মো: ইমরান, মো: গালিব, মো:সাহেদ, মো: সোহাগ, রেশমি সোলতানা, তাহামিনাইয়াসমিন, রেহেনা ইয়াসমিন, শারমিন আক্তার মিনা, হেলানা আক্তার রিফা, মো: শফি উলাহ, অভিজিৎ শর্মা, মোর্শেদ হোসাইন, মো: উসমান, মো: হেলাল উদ্দীন, মো: শাহাজান, মো:ইয়াকুব, মো: আরমান, এনায়েত উলাহ, তাওসিব, তাহামিদ,আশরাফুল গণি, ইয়াসিন আরাফাত, তুষার কান্তি দে, আল আমিন, মো: জসিম উদ্দীন, দেলোয়ার হোসাইন, মো: জাহাঙ্গীর আলম, মো: আবুল কালাম, সমাপনি বক্তব্যে সংগঠনের সভাপতি কমরেড গিয়াস উদ্দীন বলেন- কক্সবাজার সোসাইটি জন্মলগ্ন থেকে কক্সবাজারের বিভিন্ন অনিয়ম, দূর্নীতি মাদক, পরিবেশ, মানবাধিকার পরিপন্থি, ওসন্ত্রাসসহ সাপ্রদায়িকতার বিরুদ্ধে রাজপথে আছে ও থাকবে, এই লক্ষ্যে আগামী দিনে কক্সবাজার সোসাইটিকে আরো শক্তিশালী করার সংগঠনের নেতৃবৃন্দকে আহবান জানিয়ে সভার সমাপ্তি ঘোষনা করেন।