আজ, শুক্রবার | ৩রা ডিসেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ১৮ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ



চকরিয়ায় হত্যা মামলার বাদীর ঘরে ও খড়ের স্তুপে আগুন

চকরিয়া প্রতিনিধিঃ
চকরিয়া উপজেলার কৈয়ারবিল
ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ড মধ্যম কৈয়ারবিল গ্রামের ফজল করিমকে নির্মমভাবে কুপিয়ে হত্যা করে মহাসড়কের ইসলামনগর এলাকায় রাস্তার ধারে ফেলে পালিয়ে যায় অজ্ঞাত খুনিরা। এ মামলাটি বর্তমানে সিআইডি পুলিশ কক্সবাজার তদন্ত করছেন। মামলার জের ধরে অভিযুক্ত অজ্ঞতনামা আসামীরা বাদীর ঘরে ও খড়ের স্তুপে রাতের আধারে আগুন দিয়েছে। ফায়ার সার্ভিস ঘটনাস্থলে পৌছে আগুন নিয়ন্ত্রনে আনেন।
এঘটনায় মধ্যম কৈয়ারবিল গ্রামের মৃত ফজল করিমের স্ত্রী জন্নাতুল মোকা (৪২) বাদী থানায় লিখিত অভিযোগ করেন।

অভিযোগে জানাযায়, বাদীর স্বামীকে নির্মমভবাবে কুপিয়ে হত্যা করার অভিযোগে চকরিয়া থানার মামলা নং- ৩৯, তাং-
১৯/০৮/২০২১ইং, জি.আর মামলা নং- ৪৯৭/২০১৮, ধারা: ৩০২/২০১/৩৪ দঃ বিঃ দায়ের করেন। বর্তমানে মামলাটি তদন্তাধীন রয়েছে। উক্ত মামলার ৩ জন আসামী ১। আল-মামুন তুষার (২৪), পিতা: ডা: জহির আহামদ, সাং- ইসলাম নগর, ৭নং ওয়ার্ড, ইউনিয়ন: কৈয়ারবিল, ২। আবদুল হাকিম ছুটু (২৬), পিতা: লিয়াকত আলী চৌকিদার, সাং- রোস্তম আলী চৌধুরী পাড়া, ইউনিয়ন: লক্ষ্যারচর, ৩। মো: আরমান (২৫), পিতা: আবদুল মন্নান ফকির, সাং- ইসলাম নগর, ৭নং ওয়ার্ড, ইউনিয়ন: কৈয়ারবিল, উপজেলা: চকরিয়া, জেলা: কক্সবাজার গ্রেফতার হয়। বর্তমানে তাহারা জামিনে আছে। এরই জেরধরে গত ২৫অক্টোবর’২১ইং রাত আনুমানিক ১০ ঘটিকার সময় পরিবারের সদস্যরা খাওয়া-দাওয়া শেষে ঘুমিয়ে গত ২৬অক্টোবর ভোর রাত আনুমানিক ৩ ঘটিকার সময় অজ্ঞাতনামা লোকজন সংগোপনে বসত ভিটায় প্রবেশ করে বসত ভিটায় স্থিত খড়ের স্তুপে আগুন জ্বালাইয়া দেয় এবং বসত ঘরের চালে আগুন দেওয়ার চেষ্টা করে। আগুনের শিখার শব্দে পরিবারের সদস্যদের ঘুম ভেঙ্গে গেলে তড়িগড়ি করে ঘর থেকে বের হয়ে আগুন আগুন বলে চিৎকার করে লোকজন ডাকাডাকি করিতে থাকিলে এলাকার লােকজন চারিদিক হইতে আগাইয়া আসে। তখনো খড়ের স্তুপের আগুন নিভাতে ব্যর্থ হলে চকরিয়া ফায়ার সার্ভিস কর্তৃপক্ষকে ফোন করলে তড়িৎ গতিতে ঘটনাস্থলে ফায়ার সার্ভিস পৌছে আগুন নিয়ন্ত্রনে আনে। এরপরও খড়ের স্তুপ পুড়ে আনুমানিক ২০ হাজার টাকার ক্ষতি হয়। ফায়ার সার্ভিস দ্রুত পৌছার কারণে বড়ধরণের ক্ষয়ক্ষতি থেকে রক্ষা পায়।
বাদী অভিযোগ করেন, তার স্বামী হত্যার বিচার চাওয়ায় ও মামলা করায় হত্যা মামলার আক্রোশের জের ধরে মামলা প্রত্যাহার করে নেওয়ার চাপ সৃষ্টি করার মাধ্যমে পরিকল্পিতভাবে অজ্ঞাত নামা বিবাদীগণ এই ঘটনা সংগঠিত করেছে বলে ধারনা করে।
চকরিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ ওসমান গনি বলেন, অগ্নিকান্ডের বিষয়ে দেয়া অভিযোগটি তদন্ত করতে উপপরিদর্শক গোলাম সরওয়ারকে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। তদন্তে হত্যা মামলার সাথে সম্পৃক্ত কেউ এ কাজে জড়িত থাকলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।