আজ, সোমবার | ৪ঠা মার্চ, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ২০শে ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ



আমি ক্ষমাপ্রার্থী : চকরিয়ার পৌর কাউন্সিলর রাশেদার বিবৃতি

সংবাদ বিজ্ঞপ্তি : সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রচারিত বক্তব্য প্রসঙ্গে ক্ষমা চেয়ে গণমাধ্যমে বিবৃতি দিয়েছেন চকরিয়া পৌরসভার নারী কাউন্সিলর রাশেদা বেগম।

নিচে বিবৃতিটি তুলে ধরা হলো:

আসসালামু আলাইকুম,
আমি মোছাম্মৎ রাশেদা বেগম, চকরিয়া পৌরসভার ১, ২ ও ৩ নম্বর ওয়ার্ডের তিনবারের নির্বাচিত মহিলা কাউন্সিলর।

গত সোমবার হতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আমার রাজনৈতিক বক্তব্যের একটি ভিডিও প্রচার হয়েছে, যা আমারও দৃষ্টিগোচর হয়েছে।
প্রকৃত পক্ষে বিষয়টি নিয়ে আমি নিজেও ব্যথিত, লজ্জিত ও দুঃখিত।

মূলত প্রচারিত ভিডিও’র বক্তব্যটি আমার রাজনৈতিক বক্তব্য যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি মোটেও আক্রোশমূলক নয়।

বিগত পৌরসভা নির্বাচনকে কেন্দ্র করে আমার কতিপয় প্রতিপক্ষ ব্যক্তিগত, সামাজিক ও রাজনৈজিকভাবে হেয়প্রতিপন্ন করতে দীর্ঘকাল থেকে চেষ্টা করে আসছে।

যার বহিপ্রকাশ হিসেবে মহলটি আমার উক্ত রাজনৈতিক বক্তব্যটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দিচ্ছে।

প্রকৃত পক্ষে আমি এবং আমার পরিবার মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন, মানবতার নেত্রী ও উন্নয়নের ফেরিওয়ালা জননেত্রী শেখ হাসিনা ও তাহার পরিবার সম্পর্কে অতীতে কোনদিন কোথাও ব্যক্তিগত আক্রোশ বশত কোন বক্তব্য দিই নাই।

কিন্তু গত সোমবার থেকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে জড়িয়ে প্রচারিত বক্তব্যটি ছিল আমার ভুল, অনাকাঙ্খিত, অনভিপ্রেত ও দুঃখজনক।

এর ফলে আমি যতেষ্ট অনুতপ্ত, দূঃখিত ও লজ্জিত। এই অনাকাঙ্খিত ভুলের জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন, মানবতার নেত্রী ও উন্নয়নের ফেরিওয়ালা জননেত্রী শেখ হাসিনাসহ দেশের সকল রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ ও শুভাকাঙ্খিদের নিকট নিঃশর্ত ক্ষমা প্রার্থনা করছি।

আমি কথা দিচ্ছি ভবিষ্যতে এ ধরণের ভুল আর হবেনা। আশা করি আপনারা আমাকে ক্ষমা করে দেবেন।

ইতি
রাশেদা বেগম,
মহিলা কাউন্সিলর,
১, ২ ও ৩ নম্বর ওয়ার্ড,
চকরিয়া পৌরসভা।