আজ, শুক্রবার | ৩রা ডিসেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ১৮ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ



চকরিয়ায় এক প্রবাসী ও অন্তস্বত্ত্বা স্ত্রীকে মারধর ও ঘর থেকে বের করে দেয়ার অভিযোগ

চকরিয়া প্রতিনিধি:
চকরিয়ায় এক প্রবাসী ও অন্তস্বত্ত্বা স্ত্রীকে মারধর করে ঘর থেকে বের করে দেয়ার অভিযোগ উঠেছে। উপজেলার লক্ষ্যারচর ইউনিয়নের ৬নং ওয়ার্ডের ছিকঘাট চরপাড়া গ্রামে ১ অক্টোবর রাত সাড়ে ৮টার দিকে ঘটেছে এ ঘটনা। আহত প্রবাসী ও তার স্ত্রীকে উদ্ধার করে স্থানীয়রা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন।
অভিযোগে জানাগেছে, উপজেলার লক্ষ্যারচর ইউনিয়নের ছিকঘাট চরপাড়া গ্রামের বাবু মিয়ার পুত্র কফিল উদ্দিন বিগত ১৬ বছর পূর্বে জীবিকা নির্বাহের তাগিদে বিদেশ (দুবাই) যান বাবু মিয়ার পুত্র কফিল উদ্দিন। অর্থ উপার্যন করে মা-বাবা, ভাই-বোনের যাবতীয় খরচ নির্বাহ করেন এবং প্রবাসীর খরচে পৈত্রিক বসতভীটায় ঘর তৈরী করেন। পরবর্তীতে আপন এক ভাইকে নিজ খরচে বিদেশও নিয়ে যান। কিন্তু ভাগ্যের নির্মম পরিহাস প্রবাসী পরিবারের সদস্যদের (ভাইদের) লুলোপ দৃষ্টি পড়ে প্রবাসী কফিলের জায়গা-জমি ও সহায় সম্বলের প্রতি। বিগত বছর একই অজুহাতে প্রবাসীর স্ত্রীকে বেধম মারধর করে গর্ভে থাকা সন্তানকেও আঘাত প্রাপ্ত করে। পরবর্তীতে সন্তান ভূমিষ্ট হলে দীর্ঘ ৬মাস ধরে প্রচুর অর্থ ব্যয়ে চিকিৎসা করা হলেও নবজাতককে বাঁচানো সম্ভব হয়নি। ওই ঘটনায় কোন অভিযোগ, কিংবা মামলা মোকাদ্দমা কোথাও করেননি, প্রতিশোধও নেননি। সর্বশেষ গত ৩০ সেপ্টেম্বর’২১ইং দুবাই থেকে দেশে ফিরেন প্রবাসী কফিল উদ্দিন। ১অক্টোবর রাত সাড়ে ৮টায় মা-বাবার জন্য কিছু সামানা (উপহার) নিয়ে দেখতে গেলে পূর্বে থেকে ওৎপেতে থাকা ১মাস পূর্বে বিদেশ থেকে আসা আপন সহোদর মিনহাজ উদ্দিন ও নাজেম উদ্দিনের নেতৃত্বে প্রবাসী বড় ভাই কফিল উদ্দিন (৩৮) ও তার গর্ভবর্তী স্ত্রীকে বেধম মারধর করে। তাদেরকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। হামলার শিকার প্রবাসী কফিল উদ্দিন প্রশাসনের হস্তক্ষেপ পূর্বক আইনী সহায়তা চেয়েছেন।
চকরিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শাকের মো: যুবায়ের বলেন, ঘটনার বিষয়ে এখনো কেউ লিখিত অভিযোগ করেনি। অভিযোগ পেলে যথাসাধ্য আইনী সহায়তা দেওয়া হবে।